প্রেমিকের বাড়ি থেকে ফিরে গেলে মেয়েকে মেরে তাড়িয়ে দিলো তার বাবা


দৈনিক প্রতিদিনের অপরাধ প্রকাশের সময় : অগাস্ট ৬, ২০২১, ৭:০৫ অপরাহ্ন / ২৭
প্রেমিকের বাড়ি থেকে ফিরে গেলে মেয়েকে মেরে তাড়িয়ে দিলো তার বাবা

কুষ্টিয়ার  কুমারখালীতে বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থানের পরেরদিন স্থানীয় চেয়ারম্যান মেয়েকে তার বাড়িতে ফেরত পাঠালে মেয়ের বাবা তাকে বাড়িতে উঠতে না দিয়ে মেরে তাড়িয়ে দেবার খবর পাওয়া গেছে। পরবর্তীতে প্রেমিকের বাড়িতে ফিরে যাবার বিষয়টি অস্বীকার করছে প্রেমিকের পরিবারের লোকজন। শুক্রবার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের বাকচি সাত পাকিয়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে ।

গ্রাম পুলিশ নিমাই জানান, বৃহস্পতিবার বিকেলে খোকসা গোপগ্রামের এইচএসসি ১ম বর্ষের ছাত্রী জগন্নাথপুর ইউনিয়নের বাকচি সাত পাকিয়া গ্রামের মৃত আব্দুল হাইয়ের ছেলে সৈয়দ ইসলামের বাড়িতে বিয়ের দাবীতে অবস্থান করে। সেসময় প্রেমিক সৈয়দ ইসলাম বাড়িতে ছিলোনা। শুক্রবার পর্যন্ত প্রেমিক বাড়িতে ফিরে না আসলে জগন্নাথপুর ইউপি চেয়ারম্যানের নির্দেশে মেয়েকে গোপগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেনের নিকট নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে তিনি ও দফাদার সহিদ মেয়েকে তাদের বাড়িতে নিয়ে গেলে মেয়ের বাবা মা তাদের সাথে অসদাচরণ করেন এবং মেয়েকে বাড়িতে ফিরিয়ে নিতে অস্বীকৃতি জানান । সেসময় মেয়েকে তার চাচার নিকট বুঝে দিয়ে তারা ফিরে আসেন। এবং পরবর্তীতে জানতে পারেন মেয়ের বাবা মেয়েকে মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে। তিনি আরো জানান পরবর্তীতে ছেলের বাড়িতে খোঁজ নিলে জানা যায় মেয়ে সেখানেও ফিরে যায়নি।

এ বিষয়ে মেয়ের চাচা বাক্কা বলেন, তেমন মারা হয়নি। ছেলের বাড়িতে তাদের মেয়ে ফিরে যায়নি বললে তিনি বলেন ওখানেই গিয়েছে। আর ওর কপাল নিয়ে গেছে এ নিয়ে আমাদের কোন মাথা ব্যাথা নাই।

জগন্নাথপুর ইউপি চেয়ারম্যান ফারুখ আহমেদ খান জানান, ছেলে বাড়িতে না থাকার কারনে গ্রাম পুলিশ দিয়ে মেয়েকে তার বাড়িতে ফেরত পাঠানো হয়েছে। কিন্তু শুনছি মেয়ের বাবা তাকে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে। এবং পরবর্তীতে মেয়েটি তার প্রেমিকের বাড়িতে ফিরে যায়নি বলে জানাচ্ছে ছেলের পরিবারের লোকজন। বিষয়টি নিয়ে মেয়ের পরিবার কোন গুরুত্ব দিচ্ছে না।