শ্রীধাম ওড়াকান্দির ধূলিমাটি,কামনা সাগরের জল অযোধ্যা রাম মন্দিরে প্রদান কল্পে আজ বেনাপোল বর্ডারে মতুয়াচার্য শ্রী মঞ্জুলকৃষ্ণ ঠাকুরের কাছে হস্তান্তর


দৈনিক প্রতিদিনের অপরাধ প্রকাশের সময় : জুলাই ২৯, ২০২০, ৬:৪০ অপরাহ্ন / ১৭৭
শ্রীধাম ওড়াকান্দির ধূলিমাটি,কামনা সাগরের জল অযোধ্যা রাম মন্দিরে প্রদান কল্পে আজ বেনাপোল বর্ডারে মতুয়াচার্য শ্রী মঞ্জুলকৃষ্ণ ঠাকুরের কাছে হস্তান্তর

উজ্জ্বল রায়, নড়াইল জেলা প্রতিনিধিঃ-
সুধীবৃন্দ, আপনাদের রাতুল চরনে প্রনতি জানিয়ে অবগত করছি যে, আগামী ০৫/০৮/২০২০ তারিখে অযোধ্যায় রাম মন্দির প্রতিষ্ঠার কাজ শুরু হবে এবং ভারতবর্ষের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র দামোদর দাস মোদী জী উক্ত মন্দিরের শিলান্যাস করবেন।সেই লক্ষ্যে ভারতবর্ষের বিভিন্ন তীর্থের পবিত্র মাটি এবং জল সংগ্রহ করছেন ভারতবর্ষের রাম মন্দিরের কর্তৃপক্ষ।সেই ধারাকে অব্যাহত রাখতে মতুয়াচার্য শ্রী শান্তনু ঠাকুর (এম পি) কে শ্রীশ্রী হরিচাঁদ গুরুচাঁদ ঠাকুরের পূণ্যলীলাভূমি তীর্থসম্রাট শ্রীধাম ওড়াকান্দি এবং শ্রীধাম ঠাকুর নগরের পবিত্র মাটি এবং কামনা সাগরের জল সংগ্রহ করে অযোধ্যায় কর্তৃপক্ষের নিকট প্রেরন করার জন্য আহব্বান করেন।সেই মোতাবেক গতকাল মতুয়াচার্য শ্রী শান্তনু ঠাকুর তার এ পি এস মতুয়া তনময়ের মাধ্যমে আমাকে অবগত করেন এবং আজ সকালে শ্রীধাম ওড়াকান্দিতে ঠাকুর পরিবারকে সেটা অবগত করলে মতুয়া মাতা শ্রীমতি সুর্বনা ঠাকুর ঠাকুরের পীঠস্থান অর্থাৎ আদি শ্রীশ্রী হরি মন্দিরের মাটি,বারুনী স্নানের ঘটের জল প্রদান করেন।পরেকামনা সাগরেরজল, ঠাকুরবাড়ীর কীর্তনখোলার মাটি, শ্রীশ্রী হরি মন্দিরের ধূলিবস্তু,শ্রীশ্রী গুরুচাঁদ মন্দিরের মাটি,শ্রীশ্রী হরি মন্দিরের ঘটের জল এবং শ্রীশ্রী হরিচাঁদ ঠাকুরের পাদুকা ( খড়ম) এ পূজা প্রদানের পদ্মফুল হরিধ্বনি, জয়োধ্বনি,উলুধ্বনি প্রদানের মাধ্যমে মতুয়াচার্য শ্রী পদ্মনাভ ঠাকুর এবং শ্রীশ্রী হরি মন্দিরের পূজারী আমার হাতে তুলে দেন।

সেটা আজ বিকাল ৫:০০ ঘটিকায় বেনাপোল বর্ডারে রিসিভ করতে আসেন শ্রীধাম ঠাকুরনগরের এবং সমগ্র মতুয়ার প্রানের ঠাকুর মতুয়াচার্য শ্রী মঞ্জুলকৃষ্ণ ঠাকুর।এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন ভারত হতে আগত প্রানের দাদা, গোপাল দাস,প্রবোধ মজুমদারসহ আরো দুই দাদা।আমার সফরসঙ্গী সুজয় বিশ্বাস কাকাপ্রানের ঠাকুরের হাতে শ্রীধামের এই মাটি এবং জল তুলে দিতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি।আগামীকাল সকালে শ্রীধাম ওড়াকান্দি এবং শ্রীধাম ঠাকুরনগরের এই পবিত্র মাটি এবং কামনা সাগরের জল অযোধ্যায় পাঠাবেন মুক্তিসূর্য মতুয়াচার্য শ্রী শান্তনু ঠাকুর।

এটা শেয়ার করার জন্য আপনাদের রাতুল চরনে বিনীত প্রার্থনা করছি।