খোকসা- কুমারখালীর আওয়ামীলীগের রুপকার গোলাম জিলানী নজরে মুরশেদ পিটার দুস্থ কর্মহীন পরিবারের মাঝে গোপনে খাদ্য সামগ্রী বিতরন করছেন


দৈনিক প্রতিদিনের অপরাধ প্রকাশের সময় : মে ৪, ২০২০, ৯:১৪ অপরাহ্ন / ৩২০
খোকসা- কুমারখালীর আওয়ামীলীগের রুপকার গোলাম জিলানী নজরে মুরশেদ পিটার দুস্থ কর্মহীন পরিবারের মাঝে গোপনে খাদ্য সামগ্রী বিতরন করছেন

কুষ্টিয়া জেলার খোকসা-কুমারখালীর আওয়ামীলীগের জনক ও সাবেক সংসদ সদস্য মরহুম গোলাম কিবরিয়ার নাতী এবং সাবেক সংসদ সদস্য মরহুম আবুল হোসেন তরুন ও তার সহধর্মিনী সাবেক সংসদ সদস্য বেগম সুলতানা তরুনের সুযোগ্য পুত্র গোলাম জিলানী নজরে মুরশেদ পিটার করোনা ভাইরাসের দূর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় কর্মহীন দুস্থ পরিবারের মাঝে নিজ অর্থায়নে গোপনে খাদ্য সামগ্রী বিতরন করে চলেছে।মহামারি করোনা ভাইরাসের কারনে অনেক মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়ায় এক শ্রেণীর মধ্যবিত্ত পরিবার যারা কাউকে নিজের অসহায়ত্বের কথা বলতে পারছেনা এবং বিভিন্ন সংগঠনের ত্রান বিতরনের সময় ফটোসেশন করার জন্য লজ্জায় ত্রান নিতে আসছেনা এমন পরিবারকে গোপনে খাদ্য সামগ্রী বাড়িতে পৌছে দিচ্ছেন তিনি।
বিপজ্জনক করোনা ভাইরাসের হাত থেকে রক্ষা পেতে সেভ হোম কোয়ারেন্টিন এ থাকা অত্যন্ত জরুরী আর এই সেভ হোম কোয়ারেন্টিনে থেকে অনেক গরীব এবং নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের মানুষ কর্মহীনতায় পরে খুব অভাব অনটনের মধ্যে কষ্টে জীবন যাপন করছে তাই তাদের কষ্ট যাতে না হয় তাদের খাদ্য সামগ্রী বাড়ি পৌছে দেওয়ার উদ্দ্যোগ নিয়ে গরীব দুস্থ এবং নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের বাড়ি খাদ্য সামগ্রী পৌছে দিয়ে তাদের পাশে সব সময় থাকতে চান তিনি।এ বিষয়ে গোলাম জিলানী নজরে মুরশেদ পিটারের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আমার দাদা ছিলেন এমপি আমার বাবা ছিলেন এমপি এবং আমার মাতাও ছিলেন খোকসা কুমারখালীর এমপি তাই খোকসা – কুমারখালীবাসীর লোকজন সবাই আমার পরিবারের মত। আর এখন বর্তমানে করোনা ভাইরাসের দূর্যোগের মধ্যে তাদের পাশে থেকে সাহায্য করা আমার কর্তব্য, তাদের সাহায্য করে ফেসবুক বা নিউজে নিজেকে বড় করার জন্য নয়। আর আপনারাও আমার সাহায্যের উপহারের সংবাদ প্রকাশ করবেন না আমি গোপনে মানুষের পাশে থেকে সাহায্য করে যাবো লোক দেখানো নয়।