কুমারখালীতে মুখে মাস্ক নিতে বলায় কুপিয়ে জখম


দৈনিক প্রতিদিনের অপরাধ প্রকাশের সময় : এপ্রিল ১৩, ২০২০, ২:৩৪ অপরাহ্ন / ২২৯
কুমারখালীতে মুখে মাস্ক নিতে বলায় কুপিয়ে জখম

কুষ্টিয়ার কুমারখালীর পান্টি ইউনিয়নে কুষ্টিয়া থেকে প্রকাশিত দৈনিক সময়ের কাগজ পত্রিকার সিনিয়র ষ্টাফ রিপোর্টার ও কাঙাল হরিনাথ প্রেস ক্লাবের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শাহিন বিশ্বাস বিপজ্জনক করোনা ভাইরাসের প্রকোপ থেকে রক্ষার জন্য মুখে মাস্ক নেই কেন বলায় ক্ষিপ্ত হয়ে কতিপয় যুবক বাকবিতন্ডার একপর্যায়ে চলে গিয়ে এবং পরবর্তিতে ফিরে এসে তাকে না পেয়ে তার চাচাত ভাইকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক আহত করেছে বলে জানা গেছে।

শাহিন বিশ্বাস জানান আজ বিকেল ৫ টার দিকে কয়েকজন যুবক পান্টি বাজারে এসে উম্মুক্ত ভাবে মুখে মাস্ক ব্যবহার না করে চলাচল করায় তিনি তাদের জিজ্ঞেস করেন তাদের বাড়ি কোথায় উত্তরে জানায় ঝিনাইদহের শৈলকূপার বৃত্তিদেবি রাজনগরে এখানে কেন এসেছে উত্তরে বলে ঔষধ কিনতে। মুখে মাস্ক না নিয়ে অন্য জেলাতে এসে এভাবে বিচরণ না করে বাড়ি যেতে বললে ক্ষিপ্ত হয়ে দর্পন পিতা মৃত বকা মিয়া, ছবিবার পিতা মৃত ফটিক মিয়া ও নির্ঝর পিতা দর্পন সাংবাদিক শাহিনের সাথে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে এবং যেতে যেতে তার মাথা কেটে নিবে বলে হুমকি দেয়।

পরবর্তীতে তারা সন্ধ্যায় সংঘবদ্ধ হয়ে নিক্সন পিতা মৃত আলাউদ্দিন, সনেট, সাব্বির উভয় পিতা কুবা মোল্লা, নাঈম পিতা ছবিবার, সাগর, শাওন উভয় পিতা ঝরো ও শাহিন পিতা মুন্তাকে নিয়ে ফিরে এসে শাহিন বিশ্বাসের বাড়ি পান্টি খাগড়বাড়িয়া গিয়ে হামলা করে। শাহিন বিশ্বাসের বাড়ির সদস্যরা বাধা দিতে আসলে তারা এলোপাতাড়ি মারপিট করতে থাকে। এসময় শাহিন বিশ্বাসের চাচাত ভাই মৃত কুদ্দুস জোয়ার্দারের ছেলে এটম জোয়ার্দারকে কুবা মোল্লার ছেলে ছমেদ চাইনিজ কুড়াল দিয়ে কোপ দিয়ে মারাত্নকভাবে আহত করে। এসময় শাহিন বিশ্বাস বাজারে অবস্থান কালে সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছালে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে এটম জোয়ার্দারকে চিকিৎসার জন্য কুমারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তার নিতম্বে ১০ টি সেলাই দিয়ে ভর্তি রাখে। বর্তমানে সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে শাহিন বিশ্বাস জানান।