কুমারখালীতে পেঁয়াজের বাজার অস্থিতিশীল


দৈনিক প্রতিদিনের অপরাধ প্রকাশের সময় : নভেম্বর ২৪, ২০১৯, ১২:২৮ অপরাহ্ন / ১৯৩
কুমারখালীতে  পেঁয়াজের বাজার অস্থিতিশীল
কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে  পেঁয়াজের বাজারে অস্থিতিশীলতা বিরাজ করছে । গত সপ্তাহে ১০০ থেকে ১৫০ টাকা প্রতি কেজি বিক্রি হলেও আজকের বাজারে ১৭৫  থেকে ২১৫ টাকা কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে। নতুন পেঁয়াজ ১০০ থেকে ১২৫ টাকা এবং পচা পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ১০০ টাকা। অপরদিকে বর্ধিত দাম পাওয়ার আশায় ব্যবসায়ীদের সাথে বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ছে কৃষকেরা।
রোববার সকালে উপজেলার সর্ববৃহৎ পেঁয়াজের চৌরঙ্গী হাটে সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়,দেড় থেকে দুইশ মণ পেঁয়াজের আমদানি হয়েছে। ব্যবসায়ীদের সমাগমও বেশ লক্ষ করার মতো। সমস্ত হাট ঘুরে বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের সাথে আলাপচারিতা তুলে ধরা হলো।
উপজেলার পান্টি ইউনিয়নের সাজিপাড়া গ্রাম থেকে হাটে আগত কৃষক মনোয়ার জানান, দুই মণের মত পেঁয়াজ এনেছিলাম। আট হাজার ৬০০ টাকা মণ বিক্রি করলাম। তিনি আরো জানান,গত সপ্তাহে পেঁয়াজের দাম ৪ থেকে ৬ হাজার টাকা মণ ছিল।
রংপুর থেকে আগত পেঁয়াজ ব্যবসায়ী বাবলু জানান, প্রতি রোববার চৌরঙ্গী হাটে আসি। আগে ৪০ থেকে ৫০ মণ পেঁয়াজ কিনলেও দাম বাড়ায় ৮ থেকে ১২ মণ পেঁয়াজ কিনছি। আজও ৭ হাজার থেকে শুরু করে  আট হাজার  ৬০০ টাকা করে ১১ মণ পেঁয়াজ কিনেছি।
ঝিনাইদহ জেলার শৈলকূপার পেঁয়াজ ব্যবসায়ী মনিরুল জানান,প্রতি রোববার ১-২ ট্রাক মাল কিনি।কিন্তু আমদানি কম হওয়ায় ৩২ মণ পেঁয়াজ কিনেছি।প্রতি মণ ৭ থেকে সাড়ে ৮ হাজার টাকা।
এবিষয়ে চৌরঙ্গী হাট কমিটির সভাপতি করিম মন্ডল জানান,আজ প্রায় দেড়শ মণ পেঁয়াজের আমদানি হয়েছিল, বেচাকেনাও ভাল। প্রতি মণ ৭ থেকে সাড়ে ৮ হাজার পর্যন্ত বিক্রি হয়েছে। তিনি আরো জানান,কিছু নতুন পেঁয়াজেরও আমদানি হয়েছিল। ৪ হাজার থেকে ৫ হাজার টাকা মণ বিক্রি হয়েছে।