মহাসড়ক অবরোধ করে পরিবহন শ্রমিকদের বিক্ষোভ


দৈনিক প্রতিদিনের অপরাধ প্রকাশের সময় : নভেম্বর ১৯, ২০১৯, ৫:৪৯ পূর্বাহ্ন / ১৮৩
মহাসড়ক অবরোধ করে পরিবহন শ্রমিকদের বিক্ষোভ

নতুন সড়ক পরিবহন আইন বাতিলের দাবিতে গাজীপুরের শ্রীপুরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করেছেন পরিবহন শ্রমিকরা।

মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত দুই ঘণ্টা শ্রীপুর উপজেলার মাওনা চৌরাস্তা মোহা সিএনজি পাম্পেন সামনে শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করে রাখেন। এ সময় মহাসড়কের উভয় পাশে যানজট সৃষ্টি হয়। ফলে ময়মনসিংহের ত্রিশাল কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের গ-ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার্থীরা বিপাকে পড়েন।

শ্রীপুরের মাওনা চৌরাস্তায় তাকওয়া পরিবহনের চালক আবদুর রহিম জানান, সরকার আমাদের হালকা ড্রাইভিং লাইসেন্স দিয়েছে। এখন বলছে ভারী ড্রাইভিং লাইসেন্স করে মহাসড়কে গাড়ি চালাতে। না হলে আমাদের ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা নির্ধারণ করা হবে। সরকার যদি আমাদের আগে এ কথা বলত আমরা প্রথমেই ভারী ড্রাইভিং লাইসেন্স করে সড়কে গাড়ি চালাতাম।

চ্যাম্পিয়ন পরিবহনের সহকারী (হেলপার) সুজন মিয়া বলেন, সরকার যে আইন করেছে, তার বাতিল করতে হবে। এ সড়ক আইন আমরা মানি না। নতুন সড়ক পরিবহন আইন বাতিল না করলে আমাদের আন্দেলন চলতে থাকবে।

টঙ্গী থেকে আসা কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘গ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার্থী আল-আমীন জানান, পরিবহন শ্রমিকদের মহাসড়ক অবরোধ করার কারণে আমরা পরীক্ষার্থীরা পড়েছি বিপাকে। তারা আমাদের কথা শুনছেই না। আমরা সময়মতো ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারব কিনা তা নিয়ে চিন্তায় আছি।

গাজীপুর সদর উপজেলার ভবানীপুর এলাকার অপর পরীক্ষার্থী সোনিয়া আক্তার বলেন, সকাল সাড়ে ৭টায় পরীক্ষায় অংশগ্রহণের উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে রওনা হয়েছি। মাওনা চৌরাস্তা এসে দেখি পরিবহন শ্রমিকরা মহাসড়ক অবরোধ করে রেখেছেন।

পুলিশের সহযোগিতায় শ্রমিকদের ছাত্রদের যাওয়ার সুযোগ করে দেয়ার অনুরোধ করলে তারা রাজি হলেও সঙ্গে থাকা অভিভাবকদের তারা যেতে দিচ্ছেন না। এতে করে পরীক্ষার্থীরা কিছুটা ভয় পাচ্ছেন। কোনো কোনো পরীক্ষার্থী অভিভাবক ছাড়া যেতে চাচ্ছেন না।

মাওনা হাইওয়ে থানার এসআই এমএ হাশেম জানান, সকাল থেকে পরিবহন শ্রমিকরা মহাসড়ক অবরোধ করে রাখলেও তাদের বুঝিয়ে সোয়া দুই ঘণ্টা পর সড়ক থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে। এখন মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক আছে। কিছু পরীক্ষার্থীকে একসঙ্গে করে তাদের বাসে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।