ছেঁউড়িয়া দবির মোল্লার গেট সংলগ্ন সদর আশ্রমে ঐতিহাসিক ১৮ইং জিলহজ্ উপলক্ষে মাওলা আলী (আ:) ১৪২৯ তম অভিষেক দিবস অনুষ্ঠিত


দৈনিক প্রতিদিনের অপরাধ প্রকাশের সময় : অগাস্ট ২০, ২০১৯, ২:২৬ অপরাহ্ন / ৭৬১
ছেঁউড়িয়া দবির মোল্লার গেট সংলগ্ন সদর আশ্রমে ঐতিহাসিক ১৮ইং জিলহজ্ উপলক্ষে মাওলা আলী (আ:) ১৪২৯ তম অভিষেক দিবস অনুষ্ঠিত

ছেঁউড়িয়া দবির মোল্লার গেট সংলগ্ন সদর আশ্রমে ঐতিহাসিক ১৮ইং জিলহজ্ উপলক্ষে মাওলা আলী (আ:) ১৪২৯ তম অভিষেক দিবস অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রথম পর্বে, মাওলা আলী (আঃ) স্নরণে রালী বের হয়। দ্বিতীয় পর্বে, সন্ধ্যা মাওলা আলী (আঃ) স্নরণে কেক কাটা হয়। আজ ২০/৮/২০১৯ ইং তারিখে ছেঁউড়িয়া দবির মোল্লার রেলগেট সংলগ্ন সদর আশ্রম ও দবির উদ্দিন মোল্লার সুযোগ্য পুত্র ডাক্তার শামছুল আলম এর নিজ বাড়িতে এই অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিবছর ঐতিহাসিক ১৮ইং জিলহজ্ মাসের তরিকতে আহলে বাইত বাংলাদেশ ও সদর আশ্রম এর উদ্দোগে ঈদে গাদিরের শুভেচ্ছা পালিত করা হয়। হযরত আলী (আঃ) এর নামের সাথে কেন ” মাওলা ” শব্দটি ব্যবহার করা হয়? গাদীর দিবসে রাসুল (সাঃ) স্বয়ং নিজেই হযরত আলী (আঃ) সম্পর্কে যে হাদিসটি বর্ণনা করেছ ” আমি যার মাওলা এই আলীও তার মাওলা বা অভিভাবক ”। এ হাদিস সম্পর্কে মুসলমানদের মধ্যে কোন রকম দ্বন্দ্ব না থাকলেও , নবীজী (সাঃ) এর ওফাতের বেশ কিছু বছর পরে তাঁর মাওলা শব্দের অর্থ নিয়ে মুসলমানদের মধ্যে অনেক মতপার্থক্য দেখা যায়। অনেকে মাওলা শব্দকে অভিভাবক অর্থে , আবার অনেকে বন্ধু অর্থে ব্যবহার করে থাকেন। কিন্ত এ শব্দটি এমন একটি গ্রহনীয় শব্দ যা ওই সময় কেউই এ নিয়ে বিন্দুমাত্র দ্বিধাদ্বন্দ্ব করেনি। গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গরা এ হাদিসের বর্ণনার পর আলী (আঃ) কে মোবারকবাদ দেন।